1. [email protected] : thebanglatribune :
  2. [email protected] : James Rollner : James Rollner
আল্লাহর সন্তুষ্টি ও মাগফিরাত লাভের সুযোগ রমযান মাস - The Bangla Tribune
এপ্রিল ১৭, ২০২৪ | ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

আল্লাহর সন্তুষ্টি ও মাগফিরাত লাভের সুযোগ রমযান মাস

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, মার্চ ১২, ২০২৪

রমযান মাস। এখন জান্নাতের দরজাসমূহ খুলে দেওয়া হয়েছে। জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করা হয়েছে। শয়তানকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করা হয়েছে। আল্লাহর পক্ষ থেকে ঘোষক ঘোষণা করছেন ওহে কল্যাণ-অন্বেষী! নেকীর পথে তুমি আরো অগ্রসর হও। ওহে অকল্যাণের পথিক! তুমি নিবৃত্ত হও, নিয়ন্ত্রিত হও। জামে তিরমিযী, হাদীস ৬৮২; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস ১৬৪২।
চারিদিকে কেবল ক্ষমা ও মাগফিরাতের ঘোষণা রোযা রাখো, পূর্বের সব গুনাহ মাফ করে দেব। তারাবী-তাহাজ্জুদ আদায় কর, ক্ষমা লাভে ধন্য হও। লাইলাতুল কদরে ইবাদত কর, মাগফিরাতের সাগরে অবগাহন কর। ইফতারের সময় ক্ষমা করা হয়, রাতে ক্ষমা করা হয়, দিনে ক্ষমা করা হয়। চারিদিকে ক্ষমা ক্ষমা রব। এমন সুযোগ যেন আমার হাতছাড়া না হয়। এজন্য সতর্ক হব রমযানের শুরুতেই। রমযানের একেবারে শেষ প্রহরে আমরা আফসোস করে বলি হায়, রমযান চলে গেল, কিছুই করতে পারলাম না; জানি না মাগফিরাতের নিআমত লাভ করতে পারলাম কি না!
সুতরাং শুরুতেই সচেতন হই, সাধ্যমতো কাজে লাগাই রমযানকে। (যদিও আল্লাহর নেক বান্দারা সাধ্যমতো আমল করার পরও আফসোস করেন।) স্মরণ রাখি নবীজীর এ হাদীস। জাবের রা. থেকে বর্ণিত একবার নবী কারীম (সা)মিম্বারে আরোহণ করলেন। প্রথম ধাপে উঠে বললেন, আমীন। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপে উঠেও বললেন, আমীন। সাহাবীগণ জিজ্ঞাসা করলেন, আল্লাহর রাসূল! আপনাকে (এভাবে) তিনবার আমীন বলতে শুনলাম?
তখন নবীজী বললেন, আমি যখন মিম্বারের প্রথম সিঁড়িতে আরোহণ করলাম তখন জিবরীল আগমন করলেন এবং বললেন, ঐ ব্যক্তি হতভাগা, যে রমযান মাস পেল, আর রমযান গত হয়ে গেল, কিন্তু তার গুনাহ মাফ হল না। আমি বললাম, আমীন।… আলআদাবুল মুফরাদ, বুখারী, হাদীস ৬৪৪; মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ৭৪৫১ নবীজী তো কখনো আমাদের ধ্বংস চাইবেন না; তিনি চেয়েছেন এমন অবারিত সুযোগকে যেন আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করি। তাই আসুন, রমযানের শুরুতেই পরিকল্পনা গ্রহণ করি। রমযানের গুরুত্ব অনুধাবন করে একে যথাযথ কাজে লাগাই। রোযার মাধ্যমে পূর্বের সকল সগীরা গুনাহ মাফ হয় রমযান মাসের রোযা এতটা মহিমান্বিত একটি আমল, যার মাধ্যমে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন বান্দার অতীতের সকল গুনাহ ক্ষমা করে দেন। রাসূল(সা)ইরশাদ করেন
مَنْ صَامَ رَمَضَانَ، إِيمَانًا وَاحْتِسَابًا، غُفِرَ لَهُ مَا تَقَدّمَ مِنْ ذَنْبِه.
যে ব্যক্তি ঈমান ও ইহতিসাব তথা আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস ও সওয়াবের প্রত্যাশা রেখে রমযান মাসে রোযা রাখবে, তার পূর্বের গুনাহগুলো মাফ করে দেওয়া হবে। সহীহ বুখারী, হাদীস ৩৮
আল্লাহ তাআলার নিকট বান্দার রোযা অত্যন্ত প্রিয়। এর প্রতিদান আল্লাহ নিজে দেবেন। আবু হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত, রাসূল(সা) ইরশাদ করেছেন
كُلُّ عَمَلِ ابْنِ آدَمَ يُضَاعَفُ، الْحَسَنَةُ عَشْرُ أَمْثَالِهَا إِلَى سَبْعمِائَة ضِعْفٍ، قَالَ اللهُ عَزَّ وَجَلَّ: إِلَّا الصَّوْمَ، فَإِنَّه ٗ لِي وَأَنَا أَجْزِي بِهٖ، يَدَعُ شَهْوَتَه ٗ وَطَعَامَه ٗ مِنْ أَجْلِي.
মানুষের প্রত্যেক আমলের প্রতিদান বৃদ্ধি করা হয়। একটি নেকীর সওয়াব দশ গুণ থেকে সাত শ গুণ পর্যন্ত। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, কিন্তু রোযা আলাদা; কেননা তা একমাত্র আমার জন্য এবং আমি নিজেই এর বিনিময় প্রদান করব। বান্দা একমাত্র আমার জন্য নিজের প্রবৃত্তিকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং পানাহার থেকে বিরত থাকে। সহীহ মুসলিম, হাদীস ১১৫১; মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ৯৭১৪।হাদীস শরীফে রোযাকে ঢাল বলা হয়েছে। জাহান্নাম থেকে ঢাল। তবে আমার দায়িত্ব এ ঢালকে অক্ষুণ্ন রাখা; বিদীর্ণ হওয়া থেকে রক্ষা করা। ইরশাদ হয়েছে
الصّومُ جُنّةٌ مَا لَمْ يَخْرِقْهَا.
রোযা ঢাল স্বরূপ, যতক্ষণ না তা বিদীর্ণ করে ফেলা হয়। মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ১৬৯০
আরেক বর্ণনায় এসেছে, নবীজীকে জিজ্ঞেস করা হল, কীভাবে তা বিদীর্ণ হয়? নবীজী বললেন.
মিথ্যা অথবা গীবতের মাধ্যমে। আলমুজামুল আওসাত, তবারানী, হাদীস ৪৫৩৬। রোযাদার ব্যক্তি দিনভর উপোস থাকে। অনাহারে থাকার দরুন তার মুখে একধরনের দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়। দুনিয়াবি বিবেচনায় তা দুর্গন্ধ মনে হলেও রাব্বুল আলামীনের নিকট তা মেশকের চেয়েও প্রিয়। নবীজী বলেন ঐ সত্তার কসম, যার কব্জায় মুহাম্মাদের প্রাণ, রোযাদারের মুখের দুর্গন্ধ আল্লাহর নিকট মেশকের সুগন্ধি থেকেও প্রিয়। সহীহ বুখারী, হাদীস ১৯০৪।
রমযানের মতো মহিমাময় মাসে, রমযানের স্নিগ্ধ দিনগুলোতে, প্রশান্ত রাতগুলোতে আমরা যেন আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের আরো কাছাকাছি যেতে পারি। দান-সদকা ও মানবসেবার মাধ্যমে আশপাশের মানুষের রমযানগুলোকে যেন আরো সুন্দর করে তুলতে পারি। আল্লাহ তাআলা আমাদের তাওফীক দান করুন আমীন।
লেখকঃ মোঃ কামাল উদ্দিন, লেকচারার, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, আতাকরা কলেজ, কুমিল্লা।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020